कंडोम के कुछ मज़ेदार उपयोग

जितेन्द्र प्रताप सिंह (Jitendra Pratap Singh)
कुछ साल पहले उत्तर प्रदेश का स्वास्थ्य विभाग बहुत खुश हुआ जब बनारस के बुनकरों में मुफ्त में बांटे जाने वाले कंडोम की मांग खूब बढ़ गई। स्वास्थ्य विभाग यह सोच रहा था कंडोम बांटने से बुनकरों के जनसंख्या वृद्धि रुकेगी और कंडोम का सही इस्तेमाल होगा लेकिन जब पता चला कि बनारसी साड़ी बनाने वाले बुनकर मुफ्त में मिलने वाले कंडोम का इस्तेमाल साड़ी बनाने में कर रहे हैं तब ना सिर्फ उत्तर प्रदेश का स्वास्थ्य विभाग बल्कि पूरी दुनिया चौक उठी थी साड़ी बनाने वाले बुनकर कंडोम का इस्तेमाल अपने करघा पर करते हैं. साड़ियाँ तैयार करने में इस्तेमाल हो रहे हैं कंडोम दरअसल कंडोम में चिकनाई युक्त पदार्थ होता है और करघा पर लगाने से उसके धागे तेज़ी से चलते हैं और उनमें चमक भी आ जाती है. क्योंकि कंडोम में प्राकृतिक रबड़ यानी लैक्टेस होता है इसलिए बुनकर बुनाई के पहले धागों को कंडोम से खूब रगड़ देते हैं जिससे धागे में इतनी अच्छी चिकनाई आ जाती है इस साड़ी की बुनाई करते समय धागा फसता नहीं है और बुनाई तेजी से होता है और साड़ियों में बहुत अच्छी प्राकृतिक चमक आ जात…

দৃষ্টিকোণ ! কলমে- দেবযানী ! Bangla Golpo


 

তোমাকে ঠিক কতটা ভালোবাসলে- নিস্তব্ধতার কন্ঠ শুনতে পাবো? তোমায় ঠিক কতটা আগলে রাখলে একটা অন্ধকার কোণ হতে পারবো ? তিন্নি:- দাদু, এ কবিতা তোমার লেখা? দাদু:- এতো অবাক হচ্ছিস কেন দিদিভাই? অল্প বয়সে তখন তোর ঠাম্মার জন্য কম কবিতা লিখেছি? তিন্নি:- ঠাম্মা বড্ড সুন্দরী ছিলো বলো ? দাদু:- ছিল কি রে? আছে। কালো ঘন লম্বা চুল, শ্যামবর্ণ , ঘন গভীর চোখ আর সদাহাস্য মুখ । ও রোজ আমার কাছে আসে । ওই যে তোরা যখন বসার ঘরে তিন জনে তিন দিকে ফোনে ডুবে থাকিস, আমি তো ওসব পারিনা, ভালো ও লাগেনা , চুপ করে বসে থাকি তাই। তখন ও আসে , পাশে বসে। ও তো বেশি কথা বলেনা , দুজনে হাত ধরে বসে সূর্যাস্ত দেখি তাই । আগে যখন গল্প শুনতে চাইতিস , তখন গল্প পেতুম না ; আর এখন অনেক গল্প আছে কিন্তু তোদের সময় নেই।তাই , ওকে ডেকেই গল্প শোনাই রোজ , ও চুপ করে শোনে । অনেক, অনেক নালিশ করি তোদের নামে। ডায়াবেটিস বলে একটুকরো কাজু বরফি ও দিসনা কোনোদিন। বেড়াতে যাস , বুড়ো হাড়ে ঘুরতে পারবোনা ভেবে নিয়েও যাসনা কোথাও। এদিকে বসে থেকে থেকে সত্যিই হাড়ে জং ধরে গেছে। ও সব শুনে বলে ," তোমারই তো সন্তান, তোমার ভালোর জন্যই করে।" ব্যাস, আমি আর কিছু বলতে পারিনা । তিন্নি:- ও দাদু , হাঁটতে যাবে নদীর তীরে ? দাদু:- নিয়ে যাবি দিদিভাই? অনেক দিন বাইরেটা দেখিনা , বাইরে পা বাড়াতেও ভয় করে , যদি পড়ে যাই? তিন্নি:- তখন আমরা আছি তো , তোমার লাঠি । দাদু:- দিদিভাই, কেও মানতে চায়না ঠিকই, আমি মিথ্যে বলিনা রে । তোদের ঠাম্মা আমার কাছেই থাকে। ওই যে ওদিকে দেখ , এক কোণায় দাঁড়িয়ে। কী গো ! ওখানে কী করছো? এসো এদিকে, নাতনির সাথে কথা বলো । ও সুমনের মতো নয় , ও বুঝবে আমাদের। এসো ! তিন্নি:- দা- দাদু ,শোনো আমার কথা। আমি জানি ঠাম্মা ওখানেই আছে । থা- থাকনা , শুধুশুধু ডা- ডাকাডাকি কোরোনা । চলো আমরা বাইরে যাই , গাড়ি অপেক্ষা করছে। ........... দাদু:- দিদিভাই, তুই চাপবিনা দিদিভাই? আর এরাই বা কারা? দিদিভাই, এরা কোথায় নিয়ে যাবে আমায় দিদিভাই? তুই আসবি না আমার সাথে ? আমায় কোথাও পাঠাসনে দিদিভাই , ওখানে আমার আশালতার গন্ধ থাকবে না যে ... তিন্নি:- বাবা, এটা কি তুমি ঠিক কাজ করালে আমাকে দিয়ে? সুমন:- বাবা পাগল হয়ে গেছে তিন্নি, এ অবস্থায় বাড়িতে রাখা নিরাপদ নয়। তিন্নি:- হতেও তো পারে দাদু এই জগতটাকে অন্য চোখে দেখে , তোমার মতো হিসেব করে নয় । তাই হয়তো আজো তাঁর ভালোবাসা বেঁচে আছে । সুমন:- তিন্নি, একটু বেশিই বুঝছো তুমি আজকাল , যাও পড়তে বসো । #midnightthoughts #yqdada #golpo #bengaligolpo #bengali

Comments